দেবিদ্বারে আইন শৃংখলা পরিস্থিতির উন্নয়নে কমিউনিটি পুলিশিং ফোরামের ভূমিকা

কমিউনিটি পুলিশিং ফোরামের মত বিনিময় সভায় বক্তারা বলেনঃ-


‘সমাজে আইন শৃংখলা পরিস্থিতির উন্নয়নে ‘কমিউনিটি পুলিশিং’র ভূমিকা খুবই গুরুত্ব বহন করে আসছে। চুরি-ডাকাতি, ছিনতাই- রাহাজানি, ইভটিজিং- বাল্য বিয়ে- যৌতুক, জমি সংক্রান্ত ও পারিবারিক বিরোধ, মাদক প্রতিরোধসহ অনাচার- অবিচার, জুলুম- অত্যাচার, সন্ত্রাস- নৈরাজ্য সামাজিক অবক্ষয় রোধে পুলিশের সহযোগী প্রতিষ্ঠান হিসেবে কমিউনিটি পুলিশিং কাজ করে আসছে।’ সোমবার সকাল ১০টায় দেবিদ্বার রেয়াজ উদ্দিন পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়’র ‘নবাব স্যার কাজী গোলাম মহি উদ্দিন ফারুকী মিলনায়তনে’- ‘পুলিশই জনতা- জনতাই পুলিশ’-এ শ্লোগানকে সামনে রেখে দেবীদ্বার উপজেলা কমিউনিটি পুলিশিং’র এক সমাবেশে দেবিদ্বার থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোঃ মিজানুর রহমান ওই বক্তব্য তুলে ধরেন। 
তিনি উল্লেখিত বক্তব্যের পাশা পাশি সমাজ সচেতন ব্যাক্তি ও অভিভাবকদের প্রতি জোর আহবান জানিয়ে বলেন, আদিকাল থেকে পরিবার হল পৃথিবীর সর্বোচ্চ মানুষ গড়ার বিদ্যাপিঠ। আর এ পারিবারিক দায়িত্ববোধ থেকে আপনার সন্তানকে প্রকৃত মানুষ হিসেবে গড়ে তুলতে হলে,- তাদের পথ চলা এবং বেড়ে উঠার ক্ষেত্রে নজরদারী বাড়াতে হবে। এক্ষেত্রে তিনি বলেন, আপনার সন্তান তার শোয়ার ঘরে কখন ঘুমায়, কখন জেগে উঠে, পড়ার টেবিলে নিয়মিত বসে কিনা, বিদ্যায়য়ে নিয়মিত যায় কিনা, খাওয়া- দাওয়া, খেলা- ধূলা নিয়মিত করে কিনা, স্বাস্থ্যের খোঁখবর, মোবাইল বা ইন্টারনেট পরিচালনায় এমনকি মাদক সেবন, ইভটিজিং, চুরি-ছিনতাই এবং বখাটে বা বাজে ছেলেদের সংস্পর্শে চলে কিনা তার গতিবিধির প্রতি নজর রাখতে হবে। তবেই আপনার সন্তান মাদক, সন্ত্রাস, ইভটিজিং মুক্ত একটি সভ্য সমাজে, সভ্য মানুষ হিসেবে গড়ে উঠবে। আর এ বেড়ে উঠার মধ্য দিয়ে নিজে যেমন আলোকিত মানুষ হিসেবে প্রতিষ্ঠা পাবে তেমনি সমাজও আলোকিত সমাজ বিনির্মানের পথ খুঁজে পাবে। এছাড়াও তিনি জানান কমিউনিটি পুলিশিং কমিটির জনপ্রতিনিধির মাধ্যমে সমাজের প্রায় ৮০ শতাংশ অপরাধ প্রবনতা দূর করা সম্ভব। আর এ কাজটিই ‘কমিউনিটি পুলিশিং করবে। তবেই আমরা অভিষ্ঠ লখ্যে পৌঁছতে পারব, দেশও এগিয়ে যাবে। 
সভায় দেবিদ্বার থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোঃ মিজানুর রহমান’র সভাপতিত্বে এবং দেবিদ্বার থানার অফিসার ইনচার্জ (তদন্ত) মোঃ পারভেজ তালুকদার এবং উপ-পরিদর্শক(এসআই) শুভ রঞ্জন চাকমা’র সঞ্চালনায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, এবিএম আতিকুর রহমান বাশার, ‘কমিউনিটি পুলিশিং’র উপজেলা সাধারন সম্পাদক হাজী আবুল কাশেম ওমানী, সুলতানপুর ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান মোঃ শাহজাহান সরকার, দেবিদ্বার ‘কমিউনিটি পুলিশিং’ বাজার কমিটির সাধারন সম্পাদক বিপ্লব, দেবিদ্বার পৌর ‘কমিউনিটি পুলিশিং’র সভাপতি হাজী মোঃ কেফায়েতউল্লাহ্, ইউছুফপুর ইউপি চেয়ারম্যান হাজী মোঃ ডাঃ জসিম উদ্দিন, গুনাইঘর দক্ষিণ ইউনিয়ন পরিষদ’র সাবেক চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা মুজিবুল হক মান্নান সরকার, সুলতানপুর ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান মোঃ সফিকুল ইসলাম, এস,এ,সরকারী কলেজের সাবেক জিএস আব্দুল মান্নান মোল্লা, দেবিদ্বার পৌর ‘কমিউনিটি পুলিশিং’র সাধারন সম্পাদক ভিপি বাবুল হোসেন রাজু, মোহনপুর ইউনিয়ন ‘কমিউনিটি পুলিশিং’র সভাপতি শাহাদত হোসেন মিঠু, সমাজ সেবক বোরহান উদ্দিন, মাওলানা মোশাররফ হোসেন প্রমূখ। 
সভায়, আইন শৃংখলা পরিস্থিতির উন্নয়নে ডিজিটাল প্রক্রিয়ায় সফল জেলা হিসেবে ‘কমিউনিটি পুলিশিং’র প্রতিষ্ঠাতা বর্তমান বাংলাদেশ পুলিশ বাহিনীর প্রধান আইজিপি মহোদয় জনাব মোঃ শহিদুল হক পিপিএম, বিপিএম, কুমিল্লা সফরকে সফল করার ক্ষেত্রে দেবিদ্বার ‘কমিউনিটি পুলিশিং’র সক্রিয় দায়িত্ব পালনের আহবান জানানো হয়।
কমিউনিটি পুলিশিং কমিটির কার্যক্রম নিয়ে বক্তাদের প্রশ্নের খোলামেলা জবাব দেন ও.সি। “কমিউনিটি পুলিশিং কি ও কেন” নামের আই.জি.পি মহোদয়ের লেখা বইটির ফটোকপি সভায় উপস্থিত লোকজনদের প্রদান করা হয়। 

Read 2274 times