পুলিশ মেমোরিয়াল ডে-২০১৭

মহান মুক্তিযুদ্ধের প্রথম সশস্ত্র প্রতিরোধের স্বর্ণোজ্জ্বল ঐতিহ্যে অলঙ্কৃত বাংলাদেশ পুলিশ। দেশের অভ্যন্তরীন শান্তি-শৃঙ্খলা, সন্ত্রাস দমন ও অপরাধ নিয়ন্ত্রন এবং গণতন্ত্র ও মানবাধিকার সমুন্নত রাখতে বাংলাদেশ পুলিশের পেশাদার ও নিষ্ঠাবান সদস্যগণ সাফল্যের উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত স্থাপন করছেন। জঙ্গিবাদ ও সন্ত্রাস দমনে সেবা, ত্যাগ ও দেশপ্রেমের মহান মন্ত্রে উজ্জীবিত বাংলাদেশ পুলিশের অর্জিত সাফল্য আন্তর্জাতিক পরিম-লেও সুবিদিত। দেশ ও জনগণের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে গিয়ে প্রতি বছর অনেক অকুতোভয় পুলিশ সদস্য শহীদ হন। তাদের এই অনির্বচনীয় ত্যাগ ও সাহসিকতা বাংলাদেশ পুলিশকে করেছে মহিমান্বিত।


কর্তব্যরত অবস্থায় নিহত বাংলাদেশ পুলিশের সেই সকল সূর্যসন্তানদের আত্মত্যাগ ও গৌরবময় অবদানকে আমরা শ্রদ্ধার সাথে স্মরণ করি। যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, অষ্ট্রেলিয়া এবং ভারতসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশে  কর্তব্যরত অবস্থায় নিহত পুলিশ সদস্যগণের অবদানকে সম্মান জানানোর জন্য বছরের একটি দিনকে নিবার্চন করা হয়। নিহত পুলিশ সদস্যদের অবদানকে স্মরণ করার জন্য নির্ধারিত দিনটি পুলিশ মেমোরিয়াল ডে নামে পরিচিত। বাংলাদেশ পুলিশ এখন থেকে সারা দেশে এক যোগে প্রতি বছর ১লা মার্চ পুলিশ মেমোরিয়াল ডে হিসেবে পালন করবে।


পুলিশ মেমোরিয়াল ডে’ ২০১৭ উদযাপনের মাধ্যমে কুমিল্লা জেলা পুলিশ কর্তব্যরত অবস্থায় নিহত পুলিশ সদস্যগণের অবদান কৃতজ্ঞচিত্তে স্মরণ করছে। মহান মুক্তিযুদ্ধে অসম সাহসী ভূমিকা পালনকারী কুমিল্লা জেলার তৎকালীন পুলিশ সুপার শহীদ মুন্সী কবির উদ্দিন আহম্মেদ ও আরআই শহীদ আব্দুল হালিম সহ শহীদ ৩১ জন পুলিশ সদস্যের অনুপম ত্যাগ ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে আমরা হৃদয়ের গভীরে লালন করি। মুক্তিযুদ্ধ পরবর্তী সময় থেকে শুরু করে ২০১৫ সাল পর্যন্ত কর্তব্যরত অবস্থায় নিহত কুমিল্লা জেলার বাসিন্দা মোট ৩৭ জন বীর পুলিশ সদস্যগণকে কুমিল্লা জেলা পুলিশ এ বছর সম্মাননা স্মারক প্রদান করছে। পূর্বসূরীদের আত্মত্যাগে অনুপ্রাণিত আমরা দেশপ্রেম ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় উদ্ধুদ্ধ হয়ে দেশমাতৃকার সেবায় নিজেদের সর্মপণ করতে বদ্ধ পরিকর।

অগ্নিঝরা ১লা মার্চ পুলিশ মেমোরিয়াল ডে’র এই পবিত্র দিনে আমাদের দৃপ্ত শপথ জঙ্গি, মাদক ও অপরাধ মুক্ত নিরাপদ বাংলাদেশ গঠন।


 (মোঃ শাহ আবিদ হোসেন বিপিএম)
         পুলিশ সুপার
           কুমিল্লা।

 

Read 3908 times